Breaking News
BDLove99.Com
Home / Bangla News / সহবাসের নিয়ম কানুন ও ক্ষতিকারক দিক জেনে নিন

সহবাসের নিয়ম কানুন ও ক্ষতিকারক দিক জেনে নিন

Click Here :- New নাটক, মুভি,গানভিডিও ডাউনলোড করুনখুব সহজেই. [Visit Now]

১. মাসিক বা ঋতুস্রাব অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করা থেকে বিরত খাকুন।

Loading…
২. নিফাস ( অর্থাৎ বাচ্চা প্রসবের পর চল্লিশ দিন বা এর কমে যে কয়দিনে রক্ত আসা পরিপূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যায়) অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করা উচিত না। এ দুসময়ের মধ্যে সহবাস করলে উভয়েরই অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কেননা এ সময়ের রক্তের প্রচুর পরিমাণ বিষাক্ত জীবানু থাকে। যার দ্বারা ভয়ানক রোগ হওয়ার সম্ভাবনা প্রমাণিত। অনেক পুরুষকে দেখা যায় যে , এ সময় সহবাস করার কারণে য়ৌনাঙ্গে এলার্জী সহ নানা রোগ দেখা দেয়। লজ্জাস্থানে জ্বালাপোড়া, আবার কারো ধাতু দুর্বলতা দেখা দেয়।

এ সময়ের সহবাস দ্বারা সন্তান জন্ম নিলে অনেক ক্ষেত্রে সন্তানের শরীরে বিভিন্ন রোগ হয়ে থাকে. যেমন- নবজাতক শিশুর শরীরে বিভিন্ন ধরণের চর্ম রোগ হতে দেখা যায়, বাচ্চাদানী বাহিরে বের হয়ে আসে । আবার অনেক সময় মহিলাদের ভ্রুণ নষ্টের রোগ হয়ে থাকে । রক্তস্রাবের সময় মহিলাদের সর্বক্ষণ রক্ত নির্গত হওয়ার কারণে কারো কারো যৌনাঙ্গটি এক প্রকার ফোলা ও উষ্ণ থাকে। ঋতুস্রাব বা নেফাস থেকে পবিত্র হয়ে গোসল করার আগ পর্যন্ত মহিলাদের সাথে সহবাস করা থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করুন।

৩. কর্মব্যস্ততা বেশি থাকলে সে সময় সহবাস করা উচিত না, কারন স্ত্রী সহবাস শুধু শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে না বরং মানুষিক সম্পর্কও জড়িত।

৪. চিন্তা-ভাবনা, পেরেশানী ও বিচলিত অবস্থায় সহবাস করা উচিত না এতে করে সহবাসে পূর্ন তৃপ্তি আসে না।

৫. দুর্বল ও ক্লান্ত অবস্থায় সহবাস না করা উচিত।

৬. মদ্যপান বা কোন প্রকার নেশা জাতীয় দ্রব্য সেবনের পর সহবাস করা উচিৎ নয়।

৭. পেশাব পায়খানার চাপ থাকলে সহবাস না করা।

৮. একেবারে খালি পেটে অথবা ভরপেটেও সহবাস কার উচিৎ নয় । এ অবস্থায় সহবাসে পেটের বিভিন্ন রোগ সৃষ্টি হওয়ার প্রবল আশঙ্কা থাকে । এমনকি পাকস্থলী কলিজার উপর চলে আসারও সম্ভাবনা থাকে। বিজ্ঞানীদের মতে ভরাপেটে সহবাস করলে পেশাবের সাথে পূজ পড়া এবং শরীর খুবই দুর্বল হয়ে যাওয়ার আশঙ্খা থাকে আবার একেবারে খালি পেটে সহবাস করা শরীরের জন্য আরো ক্ষতিকর। কেননা বীর্যপাতের পর অণ্ডকোষ নিজের খাদ্য চর্বি থেকে যোগার করে থাকে। আর চর্বি নিজের খাবার যোগার করে কলিজা থেকে। কলিজা তার খাবার যোগার করে পাকস্থলী থেকে।

ক্ষুধার্ত অবস্থায় পেট থাকে একেবারে খাবার শূন্য যার কারণে টিবি, ভীতিপ্রদ রোগ, চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা থাকে। অসুস্থতা থেকে মুক্তির পর শারীরিক দুর্বলতা এখনো অবশিষ্ট আছে এ অবস্থায় সহবাস থেকে বিরত থাকা উচিৎ। মৃগী রোগ, টিবি রোগে আক্রান্ত ব্যাক্তি সহবাস থেকে দূরে থাকতে হবে। মস্তিষ্ক ক্ষয় হয় এমন কাজের পর সহবাস না করা। যাদের চোখের দৃষ্টির রোগ, শারীরিক দুর্বলতা ও কলিজা, পাকস্থলী দুর্বল তাদের তাদের জন্যও সহবাস করা ক্ষতিকর। তদ্রুপভাবে অর্শ্ব ও আক্রান্ত ব্যাক্তি যথাসম্ভব সহবাস থেকে দূরে থাকতে হবে।

৯. যাদের গনোরিয়া রোগ আছে তারাও যথাসম্ভব সহবাস থেকে দূরে থাকবেন।

১০. অসুস্থ অবস্থায় ও জীবানুযুক্ত বাতাস গ্রহণের সময় সহবাস না করা উচিত। জ্ঞানী ব্যাক্তিদের ধারণা মতে চাঁদের এগারো তারিখে সহবাস করা নিজের বয়স কমিয়ে ফেলারই সমান। প্রাপ্ত বয়সের পূর্বে ভ্রুণ তৈরি হলে সে সন্তান অসুস্থ অবস্থায় জন্মগ্রহণ করে। বৈজ্ঞানিকদের মতে রাতের প্রথমাংশে সহবাসের দ্বারা সন্তান জন্ম গ্রহণ করলে সে সন্তান অল্প বয়সে মৃত্যুবরণ করে। আর রাতের শেষ প্রহরে সহবাস করার দ্বারা সন্তান জন্মগ্রহণ করলে সন্তান সুস্থ সবল ও ধর্মভীরু হয়ে থাকে।

About Abir

Check Also

File0482

জেনে নিন কি কারনে মেয়েদের শরীর নরম হয়

নারী মানেই কোমল, পেলব একটি শরীর। মেয়েদের শরীর নরম শুধুমাত্র কোনো ধারণা নয়, বাস্তবেও তাই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

[X Close Ads বিঙ্গাপন কাটুন]
Loading...